TOP লাইফস্টাইল

এবার থেকে অবিবাহিত কাপলরা পাবেন কয়েক ঘণ্টার জন্য হোটেল রুম

Loading...

নীরজ ঘেওয়ান পরিচালিত ‘মশান’ (২০১৫) ছবির সেই বিশেষ সিকোয়েন্সের কথা মনে করুন। এক অবিবাহিত জুটি কিছুটা সময় একান্তে কাটাবে বলে এক হোটেলে ঘর ভাড়া নেয়। তাদের অন্তরঙ্গতা শুরু হওয়ার খানিক পরেই সেই হোটেলে হানা দেয় পুলিশ। বর্বরোচিত আচরণ শুরু করে তারা ওই জুটির সঙ্গে। সহ্য করতে না পেরে যুবকটি বাথরুমে গিয়ে আত্মহত্যা করে এবং তরুণীটি অপরাধবোধ ও অপমানের বার বইতে শুরু করে সারা জীবন।

এতটা চরম না হলেও ভারত এমনই এক দেশ, যেখানে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের কোনও জায়গাই নেই। প্রাপ্তবয়স্ক কোনও নারী-পুরুষকে একান্ত সময় কাটাতে হলে আজও লুকোতে হয় অনেক কিছু। ‘পালাতে’ হয় তাদের নিজেদের পরিসর ছেড়ে। এমন নয় যে ভারতের শহরগুলোয় এদের জন্য জায়গা নেই। গেস্ট হাউস, হোটেল— সবই বিদ্যমান। কিন্তু পুরো ব্যাপারটার মধ্যে এমন লুকোচুরি থাকে যে, এইসব আস্তানা-ওয়ালারা তাদের এক অর্থে ব্ল্যাকমেল করে। বিপুল দামে ভাড়া নিতে হয় এই সব ঘর। তার উপরে যদি পুলিশের পাল্লায় পড়তে হয়, তা হলে হয়ে গেল। কোন কেস যে ‘খেতে’ হবে, তার কোনও ঠিক নেই। সুমনের সেই গান ‘ছুটবে কোথায় প্রেম তালকানা/ এই প্রেমিকেরও আসল ঠিকানা/ দশ ফুট বাই দশ ফুট’-ই সত্যি হয়ে ঘুরপাক খায় শহর-মফস্‌সলের হাওয়ায়। শুকনো শালপাতার মতো প্রোমাক-প্রেমিকারা উড়ে বেড়ান। অনিকেত। অস্থির।

এই সত্যিটাকে মনেপ্রাণে অনুভব করেছেন পিলানির বিড়লা ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সের স্নাতক সঞ্চিত শেঠি। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, ভারতে এমন কোনও আইন নেই, যা কোনও জুটিকে হোটেলে ঘর পাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে পারে। যে কোনও পরিচিতিপত্র থাকলেই যে কেউ যেখানে ইচ্ছে ঘর পেতে পারেন। দেশ এগিয়েছে। কিন্তু হোটের ব্যবসায়ীদের মানসিকতা বদলায়নি।

২০১৫-এই সঞ্চিত ‘স্টে আঙ্কল’ ব্র্যান্ডটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রথমে এই সংস্থা অল্প সময়ের জন্য যাঁরা ঘর ভাড়া নিয়ে চান, তাঁদের সাহায্য করত। এ দেশের বেশির ভাগ হোটেল ২৪ ঘণ্টার নীচে ঘর ভাড়া দেয় না। কিন্তু অনেকেরই তার থেকে কম সময়ের জন্য ঘর দরকার পড়তে পারে। এই কাজ করতে গিয়েই তিনি দেখেন, বেশির ভাগ খোঁজই আসছে অবিবাহিত জুটির কাছ থেকে। তিনি এই বিশেষ ‘কমিউনিটি’-র কথা ভাবতে শুরু করেন।

আজ স্টে আঙ্কল-এর সঙ্গে দিল্লির ৩৪টি, মুম্বইয়ের ১০টি হোটেলের সংযুক্তি ঘটেছে। এমনকী, ট্রাইডেন্ট ও ওবেরয়ের মতো ব্র্যান্ডও তাদের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে। ৮ ঘণ্টার জন্য হোটের ভাড়া নিলে ১৪০০-৫০০০ টাকার মতো খরচ পড়তে পারে বলে জানিয়েছেন সঞ্চিত। কলকাতা এখনও স্টে আঙ্কল-এর ছাতার নীচে আসেনি। তবে, একদিকে বরফ গললে অন্য দিক কি শুকনো থাকে? আশায় বুক বাঁধতে পারেন এই শহরের অবিবাহিত জুটিরা।

সূত্র- এবেলা

আরও পড়ুন

৫১২ জিবির মেমরি কার্ড বাজারে আনতে চলেছে স্যামসাং

রাতের অন্ধকারে রাজ্যের রাজভবন চত্বরের ভিতর ঢুকে পড়ল চিতা

এই প্রকল্পের মাধ্যমে ইন্টারনেট শিখে গ্রামের মহিলারা সাবলম্বী হতে পারবেন! জেনে নিন

পাহাড়ে বড়দিনের আগেই স্বমহিমায় ফিরতে চলেছে টয় ট্রেন

Loading...

Comments

comments