TOP নিউজ

হঠাৎ শিশুর কান্নার আওয়াজ মাটির নিচ থেকে, সামনে এল রোমহর্ষক কাহিনি

Loading...
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি মাঠে খেলাধুলোর সময় হঠাৎ শিশুর কান্না শুনতে পায় কয়েকজন। তারপর তারা দেখে মাটির নিচে পোঁতা রয়েছে সদ্যোজাত। কোনওভাবে মাটি আলগা হয়ে সেখান থেকে বেরিয়ে আসছে কান্নার আওয়াজ। খবর পেয়ে স্থানীয়রা জড়ো হন। উদ্ধার করা হয় শিশুকে।
পুলিশ জানিয়েছে, শিশুর সারা শরীর ও মুখ কাদায় লেপা ছিল। স্বাভাবিকভাবে শ্বাসকষ্টের সমস্যা শুরু হয়। প্রায় ১০ ঘণ্টা ধরে মাটির ১০ ইঞ্চি নিচে পুঁতে রাখা হয়েছিল তাকে। মাটিতে থাকা পোকামাকড়ের দংশনেও কাবু হয়েছিল ছোট্ট শরীর। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখনও চিকিৎসা চলছে।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, ওই সদ্যোজাতর মা বছর ষোলোর এক উপজাতি কিশোরী। বিয়ের আগে ধর্ষণের শিকার হতে হয়েছিল। তারপর সে সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়ে। ওই অবস্থাতেই দিয়ে দেওয়া হয় বিয়ে। শ্বশুরবাড়িতে গোপন রাখা হয় সন্তান সম্ভাবনার খবর। মহারাষ্ট্রের এক পাত্রের সঙ্গে বিয়ে হয়। তারপর বাপের বাড়ির লোকজন মেয়েকে নিয়ে আসে তাদের কাছে। প্রসবের পর কবর দেওয়া হয় সদ্যোজাতকে।

ধর্ষণে অভিযুক্ত কিশোরকে বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদিকে, সদ্যোজাতর মায়ের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগে মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ওই কিশোরী জানিয়েছে, বাড়ি থেকে জোর করে তার বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। তার আগে এলাকারই এক কিশোর তাকে ধর্ষণ করে। কিন্তু, বিয়ে যাতে না ভাঙে সেজন্য শ্বশুরবাড়ির লোকজনের কাছে গোপন করা হয়েছিল সেকথা। পরে তার স্বামী বিষয়টি জানতে পেরে ওই সন্তানকে মেনে নিতে চায়নি। তাই তাকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবরগুলো:

Loading...

Comments

comments