TOP নিউজ

দিল্লিতে দিন দিন ধর্ষণ বাড়ছেই: রিপোর্ট

Loading...

জানুয়ারি থেকে মে মাসের মাঝামাঝি , চলতি বছরে সাড়ে চার মাসে ধর্ষণের সংখ্যা ৭৪০৷ প্রতিদিন গড়ে ধর্ষিতা হয়েছেন পাঁচ জনেরও বেশি মহিলা৷ দিল্লি পুলিশের সরকারি পরিসংখ্যান তেমনই বলছে৷ দিল্লিতে ২০১৬ সালে প্রথম ছ’মাসের ধর্ষণের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে যে ওই সময় ৮০২ টি ধর্ষণের মামলা নথিভুক্ত হয়েছিল দিল্লি পুলিশের কাছে৷ রয়েছে সেই সব ধর্ষণও যা পুলিশে রিপোর্ট হয় না৷

প্রথম ছয় মাসের সেই পরিসংখ্যানকে এ বারের ধর্ষণের সংখ্যা ছাপিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় যথেষ্ট উদ্বিগ্ন দিল্লি পুলিশ৷ কী করলে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ধর্ষণ কমবে , বুঝে উঠতে পারছেন না দিল্লি পুলিশের কর্তারা৷ দিল্লি পুলিশের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে একাধিক বার বৈঠক করেছেন পুলিশ কমিশনার অমূল্য পট্টনায়ক৷ রাজধানীতে ধর্ষণ কমাতে মরিয়া দিল্লি পুলিশ৷ ধর্ষণের ঘটনা ছাড়া বাকি সব ধরণের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে দিল্লি পুলিশ যথেষ্ট কৃতিত্বের সঙ্গে কাজ করছে , দাবি পুলিশের বড় কর্তাদের৷ এক পদস্থ কর্তার কথায় , ‘ধর্ষণ বাদে বাকি সব অপরাধ কমছে দিল্লিতে৷ গত বছরের তুলনায় অপরাধের হার কমেছে ৩১ .৫৪ শতাংশ৷ দিল্লি পুলিশের সাফল্যের হার বেড়েছে প্রায় ১৬ .৭৭ শতাংশ৷ এটা দিল্লি পুলিশের দক্ষতার পরিচায়ক৷ ’ ধর্ষণ বাদ দিয়ে বাকি সব ধরণের অপরাধে নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে পেরে ইতিমধ্যেই বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন দিল্লির পুলিশ কমিশনার অমূল্য কুমার পট্টনায়ক৷

মাত্র ৬ মাসের মধ্যে তাঁর কাজের গতি দেখে বেশ খুশি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের বড় কর্তারাও৷ চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি দিল্লির পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পরে পুলিশের বড় কর্তাদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেছেন পট্টনায়ক৷ পুলিশের বিভিন্ন বিভাগের আধিকারিকদের বকেয়া পদোন্নতির বিষয়ে তিনি আগে থেকেই ওয়াকিবহাল ছিলেন৷ তাই আগে দিল্লি পুলিশের ‘বিভাগীয় প্রমোশন ’-র উপরে অগ্রাধিকার দেন৷ পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে ১৮৭০২ জন পুলিশ আধিকারিকের প্রমোশন হয় , যারা দীর্ঘদিন ধরে আটকে ছিলেন একই পদে , একই বেতনে৷ এর মধ্যে ইনস্পেকটর রয়েছেন ৫১ জন , তাদের দিল্লি পুলিশের অ্যাসিসটেন্ট কমিশনার (এসিপি ) পদে উন্নীত করা হয়৷

পুলিশের একেবারে নিচু তলায়ও প্রমোশন দেন পট্টনায়ক৷ তাঁর সিদ্ধান্তে পদন্নোতি হয়েছে কনস্টেবল , হেড কনস্টেবল , সাব ইনস্পেক্টরদেরও৷ ম্যাজিকের মত কাজ দেয় পুলিশ কমিশনারের এই নীতি৷ প্রমোশন পেয়ে দিল্লি পুলিশের আধিকারিকরা আগের থেকে অনেক বেশি উদ্দীন্ত এবং ক্ষিপ্র হয়ে ওঠেন৷ যারা প্রমোশন পাননি , তারাও বুঝতে পারেন যে, ভাল কাজ করলে প্রমোশন জুটতে দেরি হবে না৷ এই ভাবনাটাকেই কাজে লাগিয়ে দিল্লি পুলিশের বিভিন্ন শাখায় বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করে দেন পুলিশ কমিশনার অমূল্য পট্টনায়ক৷ পট্টনায়েকের নির্দেশেই দিল্লি পুলিশ পাড়ায় পাড়ায় সাইকেলে করে টহলদারির কাজ শুরু করেছে৷ আগে যে সব গলিতে পুলিশের গাড়ি ঢুকত না , সেই সব এলাকার অপরাধ প্রবণতার কথা ভেবেই এই উদ্যোগ নিয়েছে পুলিশ৷ এত কিছুর পরেও পুলিশের সব থেকে বড় চিন্তা হয়ে দাঁড়িয়েছে ক্রমবর্ধমান ধর্ষণের ঘটনা৷ যা কার্যত দিল্লি পুলিশের যাবতীয় সাফল্যকে তুচ্ছ করে দিচ্ছে৷

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবরগুলি:
এবার আধার নম্বর না দিলে ব্লক হবে আপনার মোবাইল নম্বর, যে ভাবে Vodafone-এ লিঙ্ক করবেন
প্রতি ২৭ জন গ্র্যাজুয়েটের জন্য ১টি চাকরি! প্রকাশ্যে দেশের কর্মসংস্থানের কঙ্কাল!
পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর সাপ ঘরের মধ্যে! তারপর কি হলো দেখুন ভিডিওটিতে
ভারত ও আমেরিকাকে রুখতে আত্মপ্রকাশ বৃহত্তম চিনা রণতরীর
অবশেষে সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘ট্রোলিং’ রুখতে উদ্যোগ নিল টুইটার কর্তৃপক্ষ
সন্ন্যাসিনী যখন সেক্স-নন্দিনী! বিয়ের পর ৭ দিন খালি ‘বিছানা’!
Loading...

Comments

comments