TOP খেলা

ক্রিকেটার অজিঙ্ক রাহানের বাবাকে গ্রেপ্তার করল কোলাপুর পুলিশ! কেন জানুন

Loading...

ক্রিকেটার অজিঙ্ক রাহানের বাবাকে গ্রেপ্তার করল কোলাপুর পুলিশ। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক মহিলাকে ধাক্কা দেয় তাঁর গাড়ি। চালকের আসনে বসেছিলেন অজিঙ্কের বাবা মধুকর বাবুরাও রাহানে। দুর্ঘটনার জেরে মৃত্যু হয় মহিলার। তারপরই জাতীয় দলের ক্রিকেটারের বাবাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেই বেড়াতে বেরিয়েছিলেন মধুকর। স্টিয়ারিংয়ে হাত ছিল তাঁরই। পুণে-বেঙ্গালুরু ৪ নং জাতীয় সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় আচমকাই নিয়ন্ত্রণ হারান তিনি। গাড়ি সোজা দিয়ে ধাক্কা মারে এক মহিলাকে। মারাত্মক আহত হন তিনি। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসেন স্থানীয়রা। মারাত্মক জখম মহিলাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু প্রাণে বাঁচেননি তিনি। হাসপাতালেই মৃত্যু হয় তাঁর। অন্যদিকে স্থানীয়রাই অজিঙ্কের বাবাকে থানায় নিয়ে যান। তখনও তাঁর পরিচয় জানতেন না কেউই। পুলিশই প্রথম জানতে পারেন যে, মধুকর ভারতের জাতীয় দলের ক্রিকেটার বাবা। একদফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাঁকে। তারপরই গ্রেপ্তারের সিদ্ধান্ত নয় পুলিশ। অজিঙ্কের বাবার বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলাও রুজু করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, উপকূলবর্তী গ্রামে বেড়াতে গিয়েছিলেন অজিঙ্কের বাবা ও পরিবারের সদস্যরা। কোলাপুর হয়ে তারকারলি নামে গ্রামটিই তাঁদের গন্তব্য ছিল। মাঝপথে ঘটে দুর্ঘটনা। ৫৪ বছর বয়সী মধুকরবাবুই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। গাড়ি বেশ দ্রুতগতিতে চলছিল বলেও জানতে পেরেছে পুলিশ। তার জেরেই সম্ভবত তিনি নিয়ন্ত্রণ হারান। ধাক্কা দেন ৬৭ বছর বয়সী আশা কাম্বলে নামে এক মহিলাকে। কোনও কারণে ওই মহিলা রাস্তার একেবারে উপরে চলে আসেন। গাড়ির গতি বেশি থাকায় কোনওভাবেই অন্যদিকে সরতে পারেননি চালক। সোজা গিয়ে ধাক্কা দেন মহিলাকে। দুর্ঘটনায় তাঁর মৃত্যু হয়। বেরপোয়া গাড়ি চালানোর অভিযোগে মোটর ভেহিকল আইনের বিভিন্ন ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে অজিঙ্কর বাবার বিরুদ্ধে।

সূত্র ঃ সংবাদ প্রতিদিন

আরও পড়ুন

বরফের মাঝে মধুচন্দ্রিমায় মেতে রয়েছেন নবদম্পতি বিরাট-অনুষ্কা

বল হাতে ভেলকি আফ্রিদির, ১০-১০ ক্রিকেটে প্রথম হ্যাটট্রিক প্রাক্তন পাক অধিনায়কের

সানি এলে গণ আত্মহত্যা, বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে ঘিরে ধুন্ধুমার হল কর্নাটকে

গবেষকরা জানাচ্ছেন, আজকাল পুরুষ ও পিতৃত্বের মধ্যে ভিলেন হয়ে দাঁড়াচ্ছে বায়ুদূষণ

Loading...

Comments

comments