TOP সোশ্যাল

কল্পতরু উৎসবে সকাল থেকেই উদ্যানবাটি-দক্ষিনেশ্বরে ভক্তদের ঢল

Loading...

‘কল্পতরু’ উৎসব উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এবারও সকাল থেকেই কাশীপুর উদ্যানবাটি, দক্ষিণেশ্বর, রামকৃষ্ণ মহাশ্মশান, বেলুড়মঠসহ রামকৃষ্ণদেবের নামাঙ্কিত বিভিন্ন ধর্মীয় পীঠস্থানে ভক্তদের ঢল নেমেছে৷ ঠাকুর দর্শন করতে শনিবার রাত থেকেই লাইন দিয়েছেন অনেকে৷ কাশীপুর উদ্যানবাটি সহ বিভিন্ন রামকৃষ্ণ মিশনে সারাদিন নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। দিনভর চলবে হোম, ভক্তিগীতি, বেদপাঠ, রামকৃষ্ণ কথামৃত পাঠ প্রভৃতি৷

১৮৮৬ সালের ১ জানুয়ারি এই উৎসব শুরু হয়েছিল। এই দিন তাঁর অনুগামীদের কাছে নিজেকে ঈশ্বরের অবতার বলে ঘোষণা করেছিলেন রামকৃষ্ণ পরমহংস। এই ঘটনাই শ্রীশ্রী ঠাকুরের ‘কল্পতরু’ বলে পরিচিত। এই দিন রামকৃষ্ণ পরমহংসের গৃহস্থ শিষ্যরাই তাঁর কাছে উপস্থিত ছিলেন। এখানেই শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণদেব ১২ জন ভক্তকে গৈরিক বস্ত্র দেন এবং সকলের উদ্দেশ্য বলেন, তোদের চৈতন্য হোক৷

শান্তিপূর্ণভাবে কল্পতরু উৎসব শেষ করার জন্য কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ জানা গিয়েছে, উত্তর তল্লাটের ডেপুটি কমিশনারের নির্দেশে নর্থ ডিভিশনের সমস্ত থানা এবং রিজার্ভ ফোর্সের পুলিশ কর্মীরা সেখানে উপস্থিত থাকবেন। প্রতি বছরই রামকৃষ্ণদেবের কাশীপুর উদ্যানবাটিতে পুজো দিতে বিশাল ভিড় হয়। আগের দিনের গভীর রাত থেকেই শুরু হয় ভক্তদের লম্বা লাইন। একটি লাইন চলে যায় বরানগর বাজারের দিকে, অন্য একটি লাইন কাশীপুর রোড ধরে যায় চিৎপুর ব্রিজের দিকে। সেই কথা মাথায় রেখেই  শনিবার রাত থেকেই ওই এলাকায় দখল নিয়েছে পুলিশ-প্রশাসন।

সুত্রঃ কলকাতা ২৪*৭

আরও পড়ুন

হাতিকে বশে আনার প্রশিক্ষণ নিতে বনদফতরের স্কুলে ভরতি হয়েছেন খাঁকি উর্দিধারীরা৷

বর্ষবরণের রাতেই বিশ্বজুড়ে স্তব্ধ হোয়াটসঅ্যাপ

কালো জিরেতেই লুকিয়ে সৌন্দর্য্যের রহস্য! জানলে অবাক হবেন

আজ: সোমবার 1 জানুয়ারি 2018: রাশিফলে জেনে নিন কেমন যাবে আপনার দিনটি

 

Loading...

Comments

comments