TOP নিউজ

এটাই আমাদের ভারতবর্ষ, বন্দুক হাতে সম্প্রীতি রক্ষায় ঠায় দাঁড়িয়ে জওয়ান

Loading...

সিআরপিএফের শ্রীনগর ইউনিট। এক মুসলিম ধর্মাবলম্বী জওয়ান নমাজ পড়ছেন। আর তাঁর সুরক্ষার জন্য, তাঁকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য দাঁড়িয়ে আছেন আরও এক জওয়ান। তিনি মুসলিম নন। ছবিটি সিআরপিএফের টুইট্যার অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা হয়। তারপর থেকেই রীতিমতো শোরগোল ফেলে ভাইরাল হয়েছে সে ছবি। ক্যাপশন ‘ব্রাদারস ইন আর্মস ফর পিস’। সম্প্রীতি ও একতার অনন্য নজির গড়তে পারে এই ছবিটি, সোশ্যাল মিডিয়ায় মত দিচ্ছেন অধিকাংশ মানুষ।

1-66 এটাই আমাদের ভারতবর্ষ, বন্দুক হাতে সম্প্রীতি রক্ষায় ঠায় দাঁড়িয়ে জওয়ান

সেখানে নিত্যদিন রক্ত ঝরছে। গোলাগুলি, বারুদের গন্ধে ভারী হয়ে থাকে চারপাশ। উপত্যকার রোজনামচা এখন সীমান্তের গুলির আওয়াজ, জওয়ানদের বুটের শব্দ শোনা। সেখানে এই ছবি একটু হলেও কি টনক নড়াবে দেশের ভেতরে ক্রমাগত হিন্দু-মুসলিম ভাগ করতে চাওয়া উদ্দেশ্যের? আশা থাকুক। ছবিটা সোশ্যাল মিডিয়ায় যেভাবে ছড়িয়েছে, সেভাবেই ধর্মের ঘোলা জলে মাছ ধরতে চাওয়া মানুষগুলোর কাছেও পৌঁছে যাক।

সম্প্রতি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদেশমন্ত্রক যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে বলা হয়েছে ইরাক ও আফগানিস্তানের পরেই জঙ্গি হামলার নিশানায় রয়েছে ভারত। ২০১৫ সালে ভারতে জঙ্গি হামলার সংখ্যা ৭৯৮। ২০১৬ সালে সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯২৭। সেই বিষয়েও একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে মার্কিন বিদেশমন্ত্রক। সমীক্ষা করে তাদের দাবি, ২০১৫ সালে জঙ্গি হামলায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২৮৯, ২০১৬ সালে যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩৭-এ। গোটা দেশের মধ্যে ৯৩ শতাংশ হামলা হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরে। আর এই রিপোর্টের সাথে মিলে যাচ্ছে ২০১৬-১৭ সালে ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য।

2-40 এটাই আমাদের ভারতবর্ষ, বন্দুক হাতে সম্প্রীতি রক্ষায় ঠায় দাঁড়িয়ে জওয়ান

সেখানে নিত্যদিন রক্ত ঝরছে। গোলাগুলি, বারুদের গন্ধে ভারী হয়ে থাকে চারপাশ। উপত্যকার রোজনামচা এখন সীমান্তের গুলির আওয়াজ, জওয়ানদের বুটের শব্দ শোনা। সেখানে এই ছবি একটু হলেও কি টনক নড়াবে দেশের ভেতরে ক্রমাগত হিন্দু-মুসলিম ভাগ করতে চাওয়া উদ্দেশ্যের? আশা থাকুক। ছবিটা সোশ্যাল মিডিয়ায় যেভাবে ছড়িয়েছে, সেভাবেই ধর্মের ঘোলা জলে মাছ ধরতে চাওয়া মানুষগুলোর কাছেও পৌঁছে যাক।

সম্প্রতি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদেশমন্ত্রক যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে বলা হয়েছে ইরাক ও আফগানিস্তানের পরেই জঙ্গি হামলার নিশানায় রয়েছে ভারত। ২০১৫ সালে ভারতে জঙ্গি হামলার সংখ্যা ৭৯৮। ২০১৬ সালে সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯২৭। সেই বিষয়েও একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে মার্কিন বিদেশমন্ত্রক। সমীক্ষা করে তাদের দাবি, ২০১৫ সালে জঙ্গি হামলায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২৮৯, ২০১৬ সালে যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩৭-এ। গোটা দেশের মধ্যে ৯৩ শতাংশ হামলা হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরে। আর এই রিপোর্টের সাথে মিলে যাচ্ছে ২০১৬-১৭ সালে ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য।

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবরগুলো:

Loading...

Comments

comments