TOP নিউজ

২ হাজার টাকায় স্মার্টফোন দিচ্ছে কেন্দ্র, সঙ্গে আনলিমিটেড ভয়েস কল-4G ডেটা

Loading...

সুখবর! আর কোনও ভুয়ো সংস্থার উপর অন্ধভাবে বিশ্বাস করার দরকার নেই। মাত্র ২ হাজার টাকায় প্রত্যেক ভারতীয়র হাতে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন তুলে দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে টুইট করে এ কথা জানানো হয়েছে। আধার কার্ড থাকলেই অনলাইনে আবেদন করে বাড়িতে বসেই হাতে পেয়ে যাবেন নতুন স্মার্টফোন। অনেকেই ফেসবুক-টুইটারে ঠাট্টা করে এই ফোনকে মোদি-ফোন বলতে শুরু করেছেন।

এই প্রকল্পের জন্য কেন্দ্রের খরচ হবে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা। ২০১৯ লোকসভা ভোটের আগে মোদি সরকারের এই পদক্ষেপকে কৌশলী পদক্ষেপ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ত্রিপুরা ভোটের আগে প্রত্যেককে বিনামূল্যে স্মার্টফোনের আশ্বাস দিয়ে সাফল্য মিলেছিল।

আর এবার সেই মডেলই আংশিকভাবে গোটা দেশেই প্রয়োগ করে দেখতে চাইছে এনডিএ সরকার, মনে করছেন অনেকে। সবচেয়ে বড় কথা, কোনও শর্ত ছাড়াই এই ফোনে অাজীবন কথা বলা ও ইন্টারনেট ঘাঁটা যাবে। ৩ মাস অন্তর রিচার্জ করার কোনও দরকার নেই। এর জন্য জিও-র সঙ্গে হাত মেলাচ্ছে কেন্দ্র।

এখন প্রশ্ন হল, একলপ্তে কতগুলি ফোন পাওয়া যাবে? মিলবেই বা কী করে? টুইটে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। জানানো হয়েছে, ‘আগে এলে আগে পাবেন’ ভিত্তিতে প্রথমে ২০ কোটি জনগণের হাতে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন তুলে দেওয়া হবে। অনলাইনে আবেদন জানাতে হবে পিএম ডট গভ ওয়েবসাইটে। গ্রামবাসী বা দেশের প্রত্যন্ত প্রান্তের বাসিন্দাদের জন্য বিশেষ হেল্প সেন্টার খুলবে কেন্দ্র।

প্রতিটি রাজ্যের প্রতিটি শহর-গ্রামে একেবারে ব্লক স্তরে এই হেল্প সেন্টার খোলা হবে। এর জন্য কাজে লাগানো হবে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী, চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের। আজ, পয়লা এপ্রিল সকাল ৮টা থেকে সরকারি ওয়েবসাইটে বুকিং শুরু হচ্ছে। অনলাইনে আবেদন করতে হবে নাম, ঠিকানা, যোগাযোগের নম্বর ও আধার নম্বর-সহ। আবেদন স্বীকৃত হলে বাড়িতেই আগামী ৭ দিনের মধ্যে ফোন চলে আসবে। হাতে ফোন পাওয়ার পর দিতে হবে ১০০০ টাকা। নতুন নোটে এই টাকা মেটাতে হবে, পুরনো নোট চালানোর চেষ্টা করলে চলবে না!

এই খবর জানা মাত্রই দেশ জুড়ে প্রবল আলোড়ন শুরু হয়েছে। নতুন ফোন কীভাবে হাতে পাওয়া যাবে, জানতে প্রবল আগ্রহ জন্মেছে আপামর দেশবাসীর মধ্যে। সেই সঙ্গে মাত্র ২ হাজারের ফোনে এমন কী ফিচার থাকবে জানতেও আগ্রহী অনেকে। জেনে রাখা ভাল, এই ফোন আপনি ২ হাজার টাকায় পেলেও ফোনটি বানাতে উৎপাদনকারী সংস্থার খরচ হবে প্রায় দ্বিগুণ, ৪০০০ টাকা।

প্রাথমিক সূত্রে পাওয়া খবরে,এই ফোনে রয়েছে ২ জিবি র‍্যাম ও ১৬ জিবির ইন্টারনাল স্টোরেজ। প্রাইমারি ক্যামেরাও মন্দ নয়, ৮ এমপি। ফ্রন্টে ফ্ল্যাশ-সহ ৫ এমপির। একলপ্তে প্রায় ২০ কোটি ফোন বানাতে হাত মেলাচ্ছে ইনটেক্স, মাইক্রোম্যাক্স-এর মতো ভারতীয় সংস্থা। আগ্রহ তো প্রবল রয়েছে, কিন্তু হাতে পাওয়ার পরই বোঝা যাবে মোদির এই জনমুখী প্রকল্প কতটা সফল হল! ফোনগুলি আদৌ টেকসই কি না, ভালভাবে কাজ করবে কি না, সেদিকেই উন্মুখ হয়ে তাকিয়ে রয়েছে সাধারণ মানুষ।

[যেদিন এই ঘোষণাটি হলসেদিনের তারিখটার দিকেই দেখুনসারা দুনিয়ায় এই একটাই দিন রেখে দেওয়াআছে নিছক মজা করার জন্য। দিনটার অস্থিমজ্জাতেই যে লুকিয়ে রয়েছে  কথা। কত জোক এল গেলকতজোকই আসবেমজাটুকুই শুধু থেকে যায়। কিন্তু পয়লা এপ্রিল আর তো কাল থাকবে না নিছক রসিকতা করারলাইসেন্সটুকুও তাই থাকবে না তাই না হয় একটু মশকরা আজ মেনেই নিলেন বরং ভাবুনসত্যি এমনটা হলেআপনি কি খুশি হতেন নাআমাদের ধারণা লালমোহনবাবু থাকলে নিশ্চিতই বলতেন হল অসম্ভবের আনন্দ আর এই মজাটুকু স্রেফ ভাল থাকারআর SHARE করে নেওয়ার জন্যই]

সুত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন

Loading...

Comments

comments