TOP বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সোশ্যাল

Jio-কে টেক্কা দিতে এবার অভিনব উদ্যোগ নিল AirTel! এখনই জেনে নিন

Loading...

রিলায়েন্স জিও বাজারে ফোর-জি ফিচার ফোন আনার কথা ঘোষণা করতেই বহু শীর্ষ টেলিকম সংস্থার কর্তাদের রাতের ঘুম ছুটে গিয়েছে। কিন্তু জিও-র সঙ্গে লড়াইতে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়তে নারাজ দেশের অন্যতম বৃহত্তম টেলিকম সংস্থা এয়ারটেল। জিও-কে টেক্কা দিতে এবার অভিনব উদ্যোগ নিল এয়ারটেল। সংস্থার তরফে ঘোষণা করা হল, আগামী বছরের মার্চ মাসেই বাজারে চলে আসবে এয়ারটেলের ভয়েস ওভার LTE বা VoLTE পরিষেবা। ভারতে এই মুহূর্তে শুধুমাত্র জিও-ই এই পরিষেবা দেয়। ফোর-জি ভয়েস নেটওয়ার্ক ছাড়াও আরও একটি বড় প্রকল্প হাতে নিয়েছে সুনীল ভারতী মিত্তলের নেতৃত্বাধীন সংস্থা। একেবারে জিও-র কায়দায় খুব সস্তায় বাজারে ফোর-জি ফিচার ফোন আনবে এয়ারটেলও। এয়ারটেলের ফোর-জি ফিচার ফোনে মিলবে ডুয়াল সিমের সুবিধা। একথা জানিয়েছেন সংস্থার চিফ এক্সিকিউটিভ ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর গোপাল ভিত্তল।

গত শুক্রবারও মুকেশ আম্বানির সংস্থা রিলায়েন্স জিও বাজারে মাত্র ১৫০০ টাকার এককালীন দামে জিওফোন আনার কথা ঘোষণা করেন। ওই টাকা আবার গ্রাহকদের ৩৬ মাস পর ফিরিয়ে দেওয়া হবে। অর্থাৎ, বলতে গেলে একেবারে ফ্রি-তেই আম জনতার হাতে ফোর-জি ফিচার ফোনটি তুলে দিচ্ছেন আম্বানিরা। ওই ঘোষণা পর থেকেই দেশের অন্যান্য টেলিকম সংস্থাগুলির কর্তারা ভাবতে বসেন, কী পরিষেবা আনলে জিও-কে খানিকটা হলেও টক্কর দেওয়া যাবে। টেলিকম বিশেষজ্ঞরা খানিকটা আগাম আঁচও দিয়ে রেখেছিলেন, যে এয়ারটেল, ভোডাফোন ও আইডিয়াও ফের বাজারে ধরতে ঝাঁপিয়ে পড়বে।  ঠিক যেভাবে জিও বিনামূল্যে একটানা তিনমাসেরও বেশি সময় ধরে গ্রাহকদের বিনামূল্যে ফোর-জি কল ও ইন্টারনেট পরিষেবা দিতে শুরু করার পর অন্যান্য সংস্থাগুলিও বাধ্য হয় তাদের ডেটা মাশুল কমাতে।

গত মঙ্গলবার এয়ারটেলের তরফে সর্বশেষ ত্রৈমাসিকে লাভের অঙ্কের কথা ঘোষণা করতে গিয়ে ভিত্তল জানান, ফোর-জি গ্রাহকদের সংখ্যা এমন দ্রুত হারে বাড়ছে যে সেদিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া ছাড়া এই মুহূর্তে অন্য কোনও উপায় নেই। আবার টু-জি গ্রাহকদেরও নিজেদের একটা আলাদা অস্তিত্ব রয়েছে। সমস্যা হচ্ছে থ্রি-জি গ্রাহকদের নিয়ে। কারণ, থ্রি-জি এখন আর খুব একটা বেশি ইউজার ব্যবহার করছেন না। সুযোগ পেলেই তাঁরা ফোর-জি পরিষেবার দিকে ঝুঁকছেন। তবে এয়ারটেল এখনই তাদের থ্রি-জি পরিষেবা যে বন্ধ করে দিচ্ছে না, সেটাও স্পষ্টই জানিয়েছেন ভিত্তল। তবে এখনও দেশের প্রায় ৩০ কোটি মানুষ যে টু-জি পরিষেবাই ব্যবহার করছেন, যাঁরা মূলত ভয়েস কল করার জন্যই মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। পাশাপাশি, টু-জি পরিষেবার খরচ অনেক কম, ডিভাইসগুলি ব্যবহার করাও সহজ। তাই ওই টু-জি পরিষেবার দামেই ফোর-জি হ্যান্ডসেট এনে বাজার ধরতে ঝাঁপিয়ে পড়বে এয়ারটেলও।

এর পাশাপাশি জিও তাদের নতুন জিওফোনের সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন ঘোষণা করেছে। সিঙ্গল সিম ফোর-জি ফিচার ফোনটির ট্রায়াল রান শুরু হবে আসন্ন ১৫ আগস্ট থেকে। ২৪ আগস্ট থেকে শুরু হবে প্রি-বুকিং। সেপ্টেম্বর থেকে সাধারণ মানুষের হাতে উঠবে বহু প্রতীক্ষিত এই ফোন। VoLTE প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভয়েস কল করা গেলেও এই হ্যান্ডসেটে অন্য কোনও সিম কার্ড ব্যবহার করা যাবে না এখনই। তবে এয়ারটেল নিজেদের VoLTE পরিষেবা চালু করে দিলে সেক্ষেত্রে কী হবে, সেটা দেখার অপেক্ষা রয়েছে। তবে আপাতত নয়া ফোনগুলি জিও-র সিম ‘লকড’ অবস্থায় মিলবে। তবে খুব দ্রুতই জিওফোনের ডুয়াল সিম ভেরিয়েন্টও বাজারে মিলবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন জিও-র এক প্রতিনিধি। ২.৪ ইঞ্চির ডিসপ্লে বিশিষ্ট জিওফোনে থাকবে মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট, টর্চ, এফএম ও কি-প্যাড। তবে এই ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ  করা যাবে না। শুধুমাত্র ফেসবুক, ওয়েব ব্রাউজার ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘মন কি বাত’ শোনার জন্য প্রি-ইনস্টলড অ্যাপ থাকবে।

JioPhone_Launch_Reliance_AGM_Mukesh_Ambani Jio-কে টেক্কা দিতে এবার অভিনব উদ্যোগ নিল AirTel! এখনই জেনে নিন

গতকালের সেরা খবরগুলো:

Loading...

Comments

comments