TOP লাইফস্টাইল

আপনি কি জানেন চুড়ি পরায় রয়েছে বিজ্ঞানসম্মত স্বাস্থ্যগত উপকারিতা?

Loading...

সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য কালের নিয়মে নানা অলঙ্কার জায়গা করে নিয়েছে মেয়েদের শরীরে। বালা বা চুড়ি এমনই একটি অলঙ্কার, যা যুগ যুগ ধরে মেয়েদের শোভা বাড়িয়ে চলেছে। কিন্তু একবার চোখ বন্ধ করে ভাবুন তো আপনার বান্ধবীর হাতটা যদি খালি থাকে, তাহলে বেশি সুন্দর লাগে, নাকি এক গোছা চুড়ির সঙ্গ পেলে বেশি ভালো লাগে। আমার মনে হয় পরেরটাই বেশি পছন্দ, তাই না?

তবে আজকের এই লেখায় বালা বা চুড়ির সৌন্দর্য্য নিয়ে আলোচনা করা হবে না। কারণ সে বিষয়ে সবারই কম-বেশি ধারণা রয়েছে। আজ এই লেখায় চুড়ি বা বালার এক অজানা দিক তুলে ধরা হবে।

একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে বালা বা চুড়ি পরার অভ্যাস করলে আমাদের শরীরের একধিক উপকার হয়, যা শরীরের প্রতিটি অঙ্গের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আসুন জেনে নেওয়া যাক…

রক্ত সরবরাহে উন্নতি ঘটে
খেয়াল করে দেখবেন বালা পরলে প্রতিনিয়ত তা কবজিতে ঘষা লাগাতে থাকে। এমনটা হওয়ার কারণে সারা শরীরে রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গে, প্রতিটি কোষে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত পৌঁছে যাওয়ার কারণে সার্বিকভাবে শরীরের কর্মক্ষমতা যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনি রোগমুক্ত জীবনের পথে আরেও কয়েক ধাপ এগিয়ে যাওয়াও সম্ভব হয়।

স্ট্রেস কমায়
সম্প্রতি প্রকাশিত একটি স্টাডি অনুসারে ভাবি মায়েরা যদি সব সময় চুড়ি পরে থাকেন, তাহলে দারুণ উপকার মেলে।

চুড়ির মৃদু আওয়াজে একদিকে যেমন স্ট্রেস এবং অবসাদ কমতে থাকে, সেই সঙ্গে বাচ্চার শ্রবণক্ষমতারও উন্নতি ঘটে। এবার নিশ্চয় বুঝতে পেরেছেন যে আপাত দৃষ্টিতে যা একেবারেই গুরুত্বহীন একটি অলঙ্কার মাত্র, তা আদতে কতটা প্রভাব ফেলে থাকে মানব শরীরের ওপর!

মনের অন্দরে ভারসাম্য বজায় থাকে
বেশ কিছু কেস স্টাডি করে দেখা গেছে, বিভিন্ন উপাদান দিয়ে তৈরি চুড়ি নানা ভাবে শরীর এবং মনের ওপর প্রভাব ফেলে থাকে। যেমন প্লাস্টিকের চুড়ি পরলে শরীরের অন্দরে এমন কিছু পরিবর্তন হয়, যাতে মনোবল খুব বৃদ্ধি পায়। আবার অন্য উপকরণ দিয়ে তৈরি বালা বা চুড়ি পরলে মনের চালচলন একেবারে পাল্টে যায়। কেন এমনটা হয়ে থাকে, তা নিয়ে আরও জানতে গবেষণা চলছে।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, পৃথিবী হলো আস্ত একটা শক্তির বলয়। যার শরীরের প্রতিটি কণায় রয়েছে ম্যাগনেটিক পাওয়ার, যা চুড়ির ওপর প্রভাব ফেলে থাকে। যে কারণে এক এক ধরনের বালা পরলে এক এক রকমের প্রভাব পড়ে থাকে। আর সেই মতো মন এবং শরীরে পরিবর্তন ঘটে।

নেগেটিভিটি দূর করে
ভারত ভ্রমণের নেশা থাকলে খেয়াল করবেন উত্তর ভারতের মেয়েরা, বিশেষত উত্তর প্রদেশ এবং পাঞ্জাবে লাল চুড়ির জনপ্রিয়তা খুব চোখে পড়ে। যেখানে মহারাষ্ট্র এবং কর্নাটকে সবুজ চুড়ি পরতেই বেশি পছন্দ করেন মহিলারা। এমনটা কেন জানেন? সাধারণত অবচেতন মনেই মেয়েরা এই রংগুলি পছন্দ করে থাকেন। কিন্তু গবেণযায় দেখা গেছে লাল রংয়ের চুড়ি পরলে নেগেটিভ এনার্জি ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। যেখানে সবুজ চুড়ি মনকে শান্ত এবং চাপ মুক্ত রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়।

মনের জোর বাড়ে
কাচের চুড়ি পরিবেশের অন্দরে থাকা পজেটিভ এনার্জিকে আকর্ষণ করে। ফলে তার প্রভাবে আমাদের মন এবং মস্তিষ্ক চাঙা হয়ে ওঠে। সেই সঙ্গে খারাপ শক্তির প্রভাব কমে। ফলে কোনো ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়। তাই নিজেদের পাশাপাশি বাচ্চাদেরও কখনো খালি হাতে রাখবেন না। দেখবেন উপকার মিলবে।

সবচেয়ে জনপ্রিয় খবরগুলো:

Loading...

Comments

comments