TOP নিউজ

প্রায় ২০জন যুবক মিলে নাবালিকাকে বিবস্ত্র করে ভিডিও তুলে গণধর্ষণ!

Loading...

নির্ভয়া কাণ্ডেরই যেন একের পর এক প্রতিফলন৷ আর এবার সেই পৈশাচিক, ঘৃণ্য কাজটি ঘটল ঝাড়খণ্ডে৷ ঝাড়খণ্ডের দুমকা এলাকার এক নাবালিকাকে গণধর্ষণের খবর প্রকাশ্যে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ নির্যাতিতা হাসপাতালে বেঁচে থাকার শেষ লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে৷

কি ঘটেছিল?
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই নাবালিকা তার বন্ধুর সঙ্গে স্কুটিতে করে সন্ধে ৬টা নাগাদ ঘর থেকে বেরিয়ে দিগ্ঘি রিং রোডে ঘুরতে যাওয়ার জন্য বের হয়৷ রাস্তায় কয়েকজন যুবকের এই দুজনের পিছু করতে শুরু করে হঠাৎ৷ প্রথমে সেই যুবকেরা টাকা দাবি করতে থাকে৷ ওই দুই কিশোরী টাকা দিতে অস্বীকার করলে, যুবকেরা তাদের মারতে শুরু করে৷ এরপরই সেই যুবকেরা আরও কয়েকজনকে ফোন করে সেখানে ডেকে নেয়৷ প্রায় ২০জনের মতো সেখানে জমা হয়৷ আর এই দুজনের মধ্যে একজনের পোশাক খুলে দিয়ে তাকে এক এক করে ধর্ষণ করতে থাকে৷

ওই নাবালিকা বেঁহুশ হয়ে গেলে, তাকে সেই অবস্থাতেই পাশের একটি পুকুরে নিয়ে গিয়ে স্নান করিয়ে বিবস্ত্র অবস্থায় ফেলে রেখে দিয়ে চলে যায়৷ রাত প্রায় ১১টা নাগাদ জ্ঞান ফিরলে কোনওরকমে সে কাছের থানাতে গিয়ে সবকিছু জানায়৷ পুলিশ ওই নির্যাতিতাকে হাসপাতালে ভর্তি করায়৷ প্রায় ১২জনকে এরই মধ্যে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে৷ যার মধ্যে ৫জনকে শনাক্তও করেছে ওই দুই কিশোরী৷

এদিকে খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রী সরযূ রায় হাসপাতালে গিয়ে নির্যাতিতার সঙ্গে দেখা করে সাংবাদিকদের জানান, অপরাধীদের কড়া শাস্তি দেওয়া হবে এবং নির্যাতিতাকে সরকারী সাহায্যও করা হবে৷ বিজেপি নেতা শিবপূজন পাঠক এই ঘটনাকে বিকৃত মানসিকতার পরিচয় বলেন এবং সেই সঙ্গে তিনি জানান, এইসব ঘটনা যাতে আর না হয় তার জন্য সমাজকেও এগিয়ে আসতে হবে৷ মহিলা কমিশনের প্রধান কল্যাণী শরণও ঘটনার তীব্র নিন্দা করে জানান, মহিলারা বর্তমানে কোথাও সুরক্ষিত নয়৷ শুক্রবার মহিলা কমিশনের একটি দল নির্যাতিতার সঙ্গে দেখা করতে দুমকা যাবে বলে জানা গিয়েছে৷

Loading...

Comments

comments