কিন্তু কী ভাবে এল এই পতঙ্গটি? গঙ্গাফড়িংটি উড়ে এসে ক্যানভাসে আটকে গেল, আর শিল্পী টেরও পেলেন না! চ্যাটচেটে রঙের মধ্যে আটকে যাওয়ার পরেও কেন পতঙ্গটির কোনও বাঁচার চিহ্ন পাওয়া যায়নি ওই ছবিতে? এই সবই ভাবাচ্ছে পেইন্টিং বিশেষজ্ঞদের। ভ্যান গঘ প্রায়ই আউটডোরে যেতেন আঁকার জন্য। ১৮৫৫  সালে ভ্যান গঘের লেখা একটি চিঠি উদ্ধৃত করে নেলসন-অ্যাটকিনসন মিউজিয়ামের বিশেষজ্ঞরা এ কথা জানিয়েছেন। গঙ্গাফড়িংটিকে নিয়ে যা-ই জল্পনা চলুক না কেন, ১২৮ বছর ধরে রহস্য হয়ে থাকাটাই এখন দর্শকের কাছে আকর্ষণের কারণ হয়ে উঠেছে বলে জানান মেরি।

সবথেকে জনপ্রিয় খবরগুলো:

আমাদের শিক্ষামন্ত্রী প্রণব মুখার্জিপ্রধানমন্ত্রীজানি নাশিক্ষিকার উত্তর

অনলাইনে সুরক্ষার জন্য ইউজারদের নগ্ন ছবি চাইছে ফেসবুককেন জানেন?

ডেঙ্গি কমায় কি পেঁপেপাতার রসকী বলছেন বিশেষজ্ঞরা

তৃণমূল কোনো রাজনৈতিক দল নয়একটি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানিদাবি মুকুল রায়ের

বছরের প্রথম দিন থেকে বেঙ্গালুরুতে চলবে গোলাপি রংয়ের অটো।

সুত্রঃ AnandaBazar