বিএসএফ ট্রেনিং সেন্টারে বিয়ে হয় রাহুল-বিজেতার

Loading...

লাইমলাইটে আসতে চাননি, তাই সেনা ছাউনিতে বিয়ে করেছিলেন রাহুল দ্রাবিড় এবং বিজেতা। রাহুল দ্রাবিড়ের ৪৪তম জন্মদিনে খবরের শিরোনামে এল এমনই অজানা তথ্য। ২০০২ সালে রাহুল-বিজেতার ‘ম্যাচ ফিক্স’ করেছিল তাঁদের পরিবার। কিন্তু ২০০৩-এ বিশ্বকাপের কারণেই পিছিয়ে যায় বিয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকায় ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলে দেশে ফিরতেই ৪ মে, ২০০৩-এ বেঙ্গালুরুর বিএসএফ ট্রেনিং সেন্টারে বিয়ে সারেন এই ক্রিকেট কিংবদন্তী।

সম্প্রতি তিন ভারতীয় ক্রিকেটারের বিয়ে নিয়ে সরগরম ছিল সংবাদ দুনিয়া। ভুবনেশ্বর-নূপুর, জাহির-সাগরিকা এবং বিরাট-অনুষ্কা। এই তিন বিয়ে নিয়েই মেতে ছিল দেশ। বিরুষ্কার বিয়ের এক একটা ছবি লাখের ঘরে ‘লাইক’ কুড়িয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে বিরাট-অনুষ্কার ডেসটিনেশন ওয়েডিং থেকে রিসেপশনের প্রতিটা ছবি। ক্যামেরার শাটার হার মানিয়েছে স্বয়ংক্রিয় আগ্নেয়াস্ত্রের গতিকেও। ‘না চাইলেও’ আলো এসে পড়েছে এই তারকাদের মুখে। নিজেরা আলোকিত হয়েছেন এবং আলো ছড়িয়েছেন। এক কথায় তারকাখচিত।

তবে আলো বিমুখ থাকার পন্থায় কিন্তু শতরান হাঁকিয়েছেন কিংবদন্তীরা। সচিন, সৌরভ, রাহুলরা বিয়ে সেরেছেন নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায়। এই বিষয়ে রাহুল দ্রাবিড় বিরল দৃষ্টান্ত অবশ্যই। বেঙ্গালুরুর বিএসএফ ট্রেনিং সেন্টারে বিয়ে। অতিথিদের জন্য বরাদ্দ ছিল ৭০টি ঘর। দুপুরে ছিল এলাহি আয়োজন। সকাল ৯.৩০টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত মারাঠা নিয়েমে সম্পন্ন হয় বিয়ে। অথচ, কোনও ছবিই নেই। বিয়ের পর নবদম্পতি এসে কেবল কয়েক মিনিটের জন্য দাঁড়িয়েছিলেন ক্যামেরার সামনে। ব্যস, ওই পর্যন্তই। এমনকী সতীর্থদের মধ্যে কেবল অনিল কুম্বলে এবং ভেঙ্কটেশ প্রসাদই এসেছিলেন রাহুল দ্রাবিড়ের বিয়েতে।

সুত্রঃ ২৪ ঘণ্টা

আরও পড়ুন

কর্মসংস্কৃতির ফেরাতে কর্মীদের জন্য নতুন নির্দেশিকা জারি করল স্টেট ব্যাঙ্ক।

ডিজিটাল ইন্ডিয়া প্রকল্পে ৮,৫০০ রেল স্টেশনে থাকছে ফ্রি Wi-Fi,পরিষেবা।

ফেসবুক জনপ্রিয়তায় মোদীকে হারালেন সাংসদ সচিন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাম্মানিক ডিলিট দিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়।

Loading...

Comments

comments